সদ্য পাওয়া
Desh TV Logo জাতীয়: রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে বাংলাদেশের পাশে থাকবে যুক্তরাষ্ট্র, শেখ হাসিনাকে ট্রাম্পের আশ্বাস Desh TV Logo রোহিঙ্গা ইস্যুতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের চাপে ভীত নয় মিয়ানমার সরকার, মুসলিমরা কেন পালাচ্ছে তার কারণ খুঁজে বের করা হবে: জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে অং সান সুচি; আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে রাখাইন পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের আমন্ত্রণ Desh TV Logo বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য ৬ কোটি ইউরো সহাযোগিতার ঘোষণা জার্মানির Desh TV Logo ১-৮ নভেম্বর ঢাকায় শুরু হবে ৬৩তম কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি কনফারেন্স, উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী Desh TV Logo পূজা উপলক্ষে নিñিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে, হামলার কোনো আশঙ্কা নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী Desh TV Logo আজ মহালয়া, দেবীপক্ষের মধ্য দিয়ে শুরু শারদীয় দুর্গাপূজার ক্ষণগণনা Desh TV Logo কাল থেকে উপজেলা পর্যায়ে ওএমএস কর্মসূচি চলবে: খাদ্যমন্ত্রী Desh TV Logo আন্তর্জাতিক: হারিকেন মারিয়া আঘাত হেনেছে ডমিনিকায়, ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির কথা জানালেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী Desh TV Logo খেলা: ফুটবল: ভূটানে সাফ অনূর্ধ্ব-১৮ সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপে ভারতকে ৪-৩ গোলে হারিয়েছে বাংলাদেশ Desh TV Logo দেশ টিভির সংবাদ দেখুন সকাল সাড়ে ৭টা, ১০টা, বেলা ১২টা, দুপুর ২টা, বিকাল ৪টা, সন্ধ্যা ৭টা, রাত ৯টা, ১১টা এবং ১টায়

রোহিঙ্গারা বিপর্যয়কর মানবিক পরিস্থিতির সম্মুখীন: জাতিসংঘ

বৃহস্পতিবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ (১৩:০৭)
রোহিঙ্গারা-বিপর্যয়কর-মানবিক-পরিস্থিতির-সম্মুখীন-জাতিসংঘ

রোহিঙ্গারা বিপর্যয়কর মানবিক পরিস্থিতির সম্মুখীন: জাতিসংঘ

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলিমরা বিপর্যয়কর মানবিক পরিস্থিতির সম্মুখীন বলে জানিয়েছেন জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস।

রাখাইনে চলমান সহিংসতার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ এবং সেখানে সহিংসতা ও হত্যাকাণ্ড অবিলম্বে বন্ধ করতে দেশটির কর্তৃপক্ষকে তাগিদ দিয়েছে জাতিসংঘ।

এর আগে রোহিঙ্গা পরিস্থিতি নিয়ে নিরাপত্তা পরিষদ এক জরুরি বৈঠকে বসে। বৈঠকে নিন্দা জানানোর পাশাপাশি সেখানে সেনা অভিযান বন্ধে জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বানও জানানো হয়।

বৈঠক শেষে নিরাপত্তা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইথিওপিয়ার রাষ্ট্রদূত টেকেদা আলেমু এ কথা জানান।

আলেমু বলেন, নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যরা রাখাইন রাজ্যের অবস্থা নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

যে সহিংসতার শিকার হয়ে প্রায় চার লাখ মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছে সেটিরও নিন্দা জানিয়েছে তারা। সেনা অভিযানের সময় অতিমাত্রায় সহিংসতার তারা উদ্বেগ জানিয়েছে।

পাশাপাশি রাখাইনে সহিংসতা বন্ধ করা, পরিস্থিতি শান্ত করে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা, বেসামরিক নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে স্বাভাবিক আর্থ-সামাজিক অবস্থা ফিরিয়ে আনতে এবং রোহিঙ্গা শরণার্থী সমস্যার সমাধান করতে অতি দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ারও তাগিদ দিয়েছে।

গত নয় বছরের মধ্যে এই প্রথম মিয়ানমার নিয়ে বিবৃতি দিতে সম্মত হয়েছ নিরাপত্তা পরিষদ।

রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকের আহ্বান জানিয়েছে পরিষদের স্থায়ী সদস্য যুক্তরাজ্য ও অস্থায়ী সদস্য সুইডেন।

বৈঠকের পর জাতিসংঘে যুক্তরাজ্যের রাষ্ট্রদূত ম্যাথিউ রাইক্রফট বলেন, গত নয় বছরের মধ্যে এই প্রথম মিয়ানমার নিয়ে বিবৃতিতে সম্মত হয়েছে নিরাপত্তা পরিষদ।

যুক্তরাজ্যের পাশাপাশি নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য হিসেবে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, চীন ও ফ্রান্স। এই দেশগুলোর প্রতিটির যে কোনো প্রস্তাব আটকে দেয়ার ক্ষমতা রয়েছে।

মিয়ানমারের ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিতি রয়েছে চীনের, সম্প্রতি বাংলাদেশে নিয়োজিত দেশটির রাষ্ট্রদূত চলমান এই সংকটের জন্য রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের দায়ী করেন।

বিদ্রোহী গোষ্ঠী আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (এআরএসএ) গত ২৪ আগস্ট রাতে রাখাইনে ৩০টি পুলিশ পোস্ট ও একটি সেনা ঘাঁটিতে হামলা চালানোর পর রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকাগুলোতে অভিযান শুরু করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী।

পরদিন থেকে বাংলাদেশ সীমান্তে রোহিঙ্গাদের ঢল। কয়েকশ দশক ধরে চার লাখের বেশি রোহিঙ্গার ভার বহন করে আসা বাংলাদেশে নতুন করে প্রায় চার লাখ রোহিঙ্গা এসেছে।

এদিকে, এর আগে লাখ লাখ রোহিঙ্গা যারা মিয়ানমার থেকে পালিয়ে এসে বাংলাদেশে আশ্রয় নিচ্ছে, তাদের সেই পরিস্থিতিকে 'বিপর্যয়কর' ও 'অত্যন্ত দুঃখজনক' বলে উল্লেখ করেছেন জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস।

নিউইয়র্কের একটি সংবাদ সম্মেলনে গুতেরেস বলেন, মিয়ানমারে দশকের পর দশক ধরে যে উৎপীড়ন চলছিলো তা এখন এমনই দশায় পৌঁছেছে যে, মিয়ানমারের সীমানা ছাড়িয়ে তা এখন আঞ্চলিক অস্থিরতার কারণ হয়ে ওঠেছে। সেখানে মানবিক অবস্থাও 'বিপর্যকর'।

এরকম পরিস্থিতিতে মানবিক সহায়তা দেয়ার জন্য বিশ্বের সকল দেশকে আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

এই ক্যাটাগরীর আরও খবর

পুরনো সংবাদ

শুক্র
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
০১
০২
০৩
০৪
০৫
০৬
০৭
০৮
০৯
১০
১১
১২
১৩
১৪
১৫
১৬
১৭
১৮
১৯
২০
২১
২২
২৩
২৪
২৫
২৬
২৭
২৮
২৯
৩০